শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৭:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
Logo বৈশাখ মাসের ধানের নতুন গন্ধ Logo ফোঁটা জল প্রায় 90 দিন লাগে। Logo ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসের পাশাপাশি আজ সুন্দরবন দিবস Logo রংপুরে স্নেহা জেনারেল হাসপাতালে দোয়া মাহফিল ও শুভ উদ্বোধন।  Logo নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এর ছেলের নামে মিথ্যা অভিযোগ ও মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন Logo নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ দাউদ হোসেন এর উদ্যোগে গণ টিকা উদ্বোধন  Logo সীমান্ত এলাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন লাভলী Logo ভোরের চেতনা পত্রিকার সম্পাদক আগমন উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা প্রতিনিধি মিরাজুল শেখ Logo বাগেরহাটে সন্তানের সামনে মাকে ধর্ষণ,ধর্ষককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত Logo বাগেরহাট পৌরসভায় শুরু হয়েছে নিবন্ধন ছাড়াই টিকা দান কর্মসূচী

মৌলভীবাজার ও রাজনগর এক সদস্য দিয়ে আ.লীগের কমিটি চলছে।   

নিউজ ডেস্ব / ২৬১ বার পঠিত
আপডেট : শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:৪১ অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার মৌলভীবাজার 

নির্বাচিত সভাপতি মারা গেছেন। কমিটির একমাত্র সদস্য হিসেবে এখন শুধু আছেন সাধারণ সম্পাদক।

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয় ২০১৯ সালে। সম্মেলনে শুধু সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়। সম্মেলনের পর ২১ মাস পার হয়ে গেছে। এর মধ্যে নির্বাচিত সভাপতিও মারা গেছেন। কমিটির একমাত্র সদস্য হিসেবে এখন শুধু আছেন সাধারণ সম্পাদক।

দলের নেতা-কর্মীরা বলেন, দুই যুগ পর ২০১৯ সালের ৭ ডিসেম্বর রাজনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হয়। সম্মেলনের দিন কাউন্সিল অধিবেশনে সমঝোতার ভিত্তিতে তিন বছর মেয়াদি কমিটিতে শুধু সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। সভাপতি হয়েছিলেন আগের কমিটির সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিছবাহুদ্দোজা এবং সাধারণ সম্পাদক হন জেলা কমিটির সদস্য ও রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মিলন বখত।

সম্মেলনের পর পূর্ণাঙ্গ উপজেলা কমিটি গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও বিধিনিষেধে পূর্ণাঙ্গ কমিটি আর গঠন করা সম্ভব হয়নি। এদিকে গত ২৪ মার্চ উপজেলা সভাপতি মিছবাহুদ্দোজা বার্ধক্যজনিত রোগে মারা যান। কমিটির একমাত্র নির্বাচিত সদস্য এখন শুধু সাধারণ সম্পাদক। ৭১ সদস্যবিশিষ্ট উপজেলা কমিটির ৭০টি পদ এখন শূন্য। আওয়ামী লীগ সূত্র জানিয়েছে, সম্মেলনের পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্যে একটি খসড়া তালিকা করা হয়েছিল। এর কিছুদিন পরই করোনাভাইরাস সংক্রমণ দেখা দেয়। বিধিনিষেধে চলাকালে দলের নেতা-কর্মীরা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। দলীয় কাজেও স্থবিরতা আসে। এমতাবস্থায় আর পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের কাজ এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি। সভাপতির মৃত্যুর পর সাধারণ সম্পাদক একা হয়ে গেছেন। তিনি উপজেলার আট ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। কমিটির সাধারণ সম্পাদক মিলন বখত বলেন, কমিটি না হওয়ার জন্য করোনা একটি বড় কারণ। সভাপতিসহ খসড়া কমিটির তালিকাতে যাঁরা ছিলেন, তাঁদের অনেকে মারা গেছেন। তবে দলের কার্যক্রম বন্ধ না। একা হওয়ায় দায়িত্ব আরও বেশি বলে মনে করছেন তিনি। তবে অন্যান্য উপজেলায় সম্মেলনের দিন সভাপতি-সম্পাদকসহ ন্যূনতম সাত-আটজনকে নির্বাচিত করা হয়ে থাকে। এখানে তা হয়নি। এ রকম থাকলে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন না হওয়া পর্যন্ত কাজে সহযোগিতা করতো।

মিলন বখত আরও বলেন, পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য তাঁরা কেন্দ্রের নির্দেশনার অপেক্ষা করছেন। গত জুলাই মাসে সিলেট বিভাগের দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের সঙ্গে রাজনগর উপজেলা কমিটি গঠন নিয়ে কথা হয়েছে। আওয়ামী লীগের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান বলেন, করোনার কারণে কমিটি গঠন হয়নি। কমিটি গঠন নিয়ে কেন্দ্রে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা পেলেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD